1. admin@apontelevision.com : admin :
বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ০৭:০৯ অপরাহ্ন

বিধবা নারীকে এসিড নিক্ষেপ মামলার সুষ্ঠ তদন্তের দাবিতে কুড়িগ্রামের উলিপুরে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন ।

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১০ সেপ্টেম্বর, ২০২৩
  • ৯০ বার পঠিত

কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধি

কুড়িগ্রামের উলিপুরে এক বিধবা নারীকে এসিড নিক্ষেপের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলা সুষ্ঠু তদন্ত না করে চুড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিলের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী। শনিবার দুপুরে জেলার উলিপুর উপজেলার হাতিয়া ইউনিয়ন পরিষদের সামনে এ বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। প্রায় ঘন্টা ব্যাপী অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধনে এসিড সন্ত্রাসের শিকার হতদরিদ্র গৃহবধূ স্বরস্বতী রানী সহ স্থানীয় মানুষজন উপস্থিত ছিলেন।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, হাতিয়া ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন কামারপাড়া গ্রামের অসহায় বিধবা গৃহবধূ সরস্বতী রাণীর (৩২) সাথে পৈত্রিক ভিটা মাটি নিয়ে কাকা নিরোধ চন্দ্র শীল এর বিরোধ চলে আসছিল দীর্ঘদিন ধরে। এরই জের ধরে ২০২২ সালের ১০ সেপ্টেম্বর রাতের অন্ধকারে স্বরশ্বতী রাণীর উপর এসিড নিক্ষেপ করে প্রতিপক্ষের লোকজন। এ সময় তার আত্মচিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে এসে এসিডে ঝলসে যাওয়া সরস্বতীকে উদ্ধার করে প্রথমে উলিপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে কুড়িগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে রেফার্ড করেন। পরবর্তীতে সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

এদিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এসিড সন্ত্রাসের শিকার স্বরশ্বতী রানী নিজে বাদী হয়ে আসামিদের নাম উল্লেখ করে উলিপুর থানায় অভিযোগ দাখিল করেন। সংশ্লিষ্ট থানার তৎকালীন অফিসার ইনচার্জ অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে এসিড অপরাধ দমন আইন,২০০২ এর ৫ (খ) / ৭ ধারায় মামলা রেকর্ড করেন। এরপর মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব পান সংশ্লিষ্ট থানার এস আই আনিছুর রহমান। যিনি দীর্ঘদিন হাতিয়া ইউনিয়নের বিট পুলিশিং-এর দায়িত্ব পালন করছিলেন।

অভিযোগ উঠেছে, মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব পাওয়ার পর ওই কর্মকর্তা স্থানীয় প্রভাবশালী একটি মহলের ইন্ধনে স্পর্শকাতর এসিড মামলার একাধিক সাক্ষীর সাথে কথা না বলে ১৬১ ধারায় তার মনগড়া জবানবন্দী লিপিবদ্ধ করে মামলা দায়েরের ৪০ দিনের মাথায় সকল আসামীকে অব্যাহতি দিয়ে চূড়ান্ত প্রতিবেদন বিজ্ঞ আদালতে দাখিল করেন। বিষয়টি জানার পর মালার বাদী চুড়ান্ত প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে আদালতে আপত্তি উত্থাপন করে পুণ:তদন্তের দাবি জানালে বিজ্ঞ আদালত শুনানী শেষে মামলাটি অধিকতর তদন্তের জন্য কুড়িগ্রাম সিআইডিকে নির্দেশ দেন।

এদিকে হতদরিদ্র গৃহবধু স্বরশ্বতী রানীর উপর নৃশংস এসিড মামলার চূড়ান্ত প্রতিবেদন তড়িঘড়ি করে আদালতে দাখিল করায় তদন্তকারী পুলিশ কর্মকর্তার ভূমিকা নিয়ে এলাকার মানুষের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। এ ঘটনার প্রতিবাদে এবং মামলার সঠিক তদন্ত ও অপরাধীদের শাস্তির দাবীতে এলাকায় মানববন্ধন ও বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য রাখেন, মামলার বাদী স্বরশ্বতী রানী, আফজাল হোসেনসহ আরো অনেকে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর
All rights reserved © 2024
Design By Raytahost