1. admin@apontelevision.com : admin :
বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ০৬:৫৯ অপরাহ্ন

দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে মানববন্ধন ।

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ৯ সেপ্টেম্বর, ২০২৩
  • ১১০ বার পঠিত

দিনাজপুর জেলা প্রতিনিধি:-

দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার শিবনগর ইউপির রাজারামপুর সরফউদ্দিন (এস.ইউ) উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুর রাজ্জাক ও ম্যানেজিং কমিটির সহ-সভাপতি শরীফ উদ্দিন চৌধুরী ও সহকারী শিক্ষক মোঃ বেলাল হোসেন এর বিরুদ্ধে বিদ্যালয় চত্ত্বরে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর স্মারকলিপি প্রদান। অভিযোগকারীদের লিখিত অভিযোগে জানা যায়, অত্র বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কয়েকটি পদে নিয়োগ প্রদানের জন্য পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেন। বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর উল্লেখ্য প্রার্থীরা প্রধান শিক্ষকের সঙ্গে যোগাযোগ করেন এবং স্ব স্ব পদে আবেদন করেন। একই পদে একাধিক ব্যক্তিকে নিয়োগের কথা বলে প্রধান শিক্ষক সকলের কাছ থেকে প্রায় কোটি টাকা হাতিয়ে নেন বলে অভিযোগ করেন ভুক্তভোগীরা। পরবর্তীতে ভুক্তভোগীরা জানতে পারেন নিয়োগ হয়ে গেছে। পরে তারা প্রধান শিক্ষককে তাদের দেওয়া টাকা ফেরত চান। টাকা ফেরত দেওয়ার কথা বলে ভুক্তভোগীদের চেক এবং স্ট্যাম্প প্রদান করেন। সেই চেক এবং স্ট্যাম্প নিয়ে তারিখ অনুযায়ী প্রধান শিক্ষকের নিকট টাকা চাইতে গেলে তালবাহানা শুরু করেন। দীর্ঘদিন ঘুরে ঘুরে ভুক্তভোগীরা টাকা ফেরত না পেয়ে গত বৃহ:স্পতিবার স্কুলের প্রধান ফটকের সামনে মানববন্ধন করেন। এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, প্রধান শিক্ষক এক মাসের ছুটিতে রয়েছেন। যার কারণে তার সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। মানব বন্ধন শেষে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেন। স্মারকলিপিতে ভুক্তভোগীদের পক্ষে মোঃ মঞ্জুরুল হক উল্লেখ করেন, রাজারামপুর সরফউদ্দিন (এস.ইউ) উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাকের বিরুদ্ধে অভিযোগ করিতেছি যে, উক্ত ব্যক্তি আমাদের মোট ১২ (বারো) জনকে অত্র বিদ্যালয়ে চাকুরী দেওয়ার কথা বলে মোঃ মঞ্জুরুল ইসলাম, গ্রাম- দামোদরপুর, ৭,০০,০০০/- (সাত লক্ষ) টাকা, মোঃ বুলবুল, গ্রাম ঃ বি-আমতলী, ৯,৬০,০০০/- (নয় লক্ষ ষাট হাজার) টাকা, শিশির, গ্রাম- সুলতানপুর, ৬,০০,০০০/- (ছয় লক্ষ) টাকা, মোঃ মোশরেফুল, গ্রাম- আটরাই, ৩,৬০,০০০/- (তিন লক্ষ ষাট হাজার), মোঃ নবিরুল, গ্রাম- পুখুরী, ৬,০০,০০০/- (ছয় লক্ষ) টাকা, মোঃ মুক্তার, গ্রাম- রাজারামপুর, ৫,০০,০০০/- (পাঁচ লক্ষ) টাকা, সুমন, গ্রাম- রাজারামপুর ঘাটপাড়া, ৫,০০,০০০/- (পাঁচ লক্ষ) টাকা, সেতু চন্দ্র, গ্রামঃ চককবির, ৪,০০,০০০/- (চার লক্ষ) টাকা, সবুজ, গ্রাম- খোসলপুর, ৫,০০,০০০/- (পাঁচ লক্ষ) টাকা, মোজাম্মেল, গ্রাম- রুথরাইল, ৭,৫০,০০০/- (সাত লক্ষ পঞ্চাশ হাজার), মোঃ লতিফুর, গ্রাম- রাজারামপুর, ৯,০০,০০০/- (নয় লক্ষ) টাকা, মোছাঃ রাবেয়া, গ্রাম- রাজারামপুর, ৩,৬৫,০০০/- (তিন লক্ষ পঁয়ষট্টি হাজার) টাকা গ্রহণ করেন। টাকা গ্রহণের সময় অত্র বিদ্যালয়ের সহ-সভাপতি শরীফ চৌধুরী ও সহকারী শিক্ষক মোঃ বেলাল হোসেন প্রধান শিক্ষকের সহিত উপস্থিত ছিলেন। পরবর্তীতে আমরা বারবার চাকুরীর কথা বললে চাকুরী না দিয়ে তালবাহানা শুরু করেন। পরে চাকুরী দিতে ব্যর্থ হলে টাকা প্রদানকারী সকলকে তার বাসায় ডেকে সমঝোতা করে টাকা ফেরৎ দেওয়ার কথা বলে চেক এবং স্ট্যাম্প করে দেন। তারিখ অনুযায়ী আমরা ব্যাংকে গেলে আমরা ব্যাংকে গিয়ে দেখি ঐ একাউন্টে কোন টাকা নেই এবং তার স্ট্যাম্পের মেয়াদ শেষ হয়ে গেলে আমরা টাকা চাইতে তার বাড়িতে উপস্থিত হই। গিয়ে দেখি তিনি বাড়ি থেকে পালিয়ে গেছেন। পরে তার স্ত্রী আমাদেরকে আশ্বস্ত করেন বাড়ি বিক্রয় করে সমস্ত টাকা ফেরৎ দেওয়া হবে। কিন্তু আমরা এখন পর্যন্ত তার কোন হদিস পাচ্ছি না। অদ্যবধি তিনি পলাতক রয়েছেন। এ ব্যাপারে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মামুনুর রশীদ চৌধুরী বিপ্লব বলেন, এ বিষয়ে আমি কোন কিছু জানিনা। তবে ভুক্তভোগীরা লিখিত অভিযোগ দিলে আমি ম্যানেজিং কমিটির সঙ্গে আলোচনা স্বাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর
All rights reserved © 2024
Design By Raytahost