1. admin@apontelevision.com : admin :
বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ০৭:১১ অপরাহ্ন

মাদারীপুরে এক বৃদ্ধাকে নির্যাতনের অভিযোগে পুলিশের বিরুদ্ধে মামলা।

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১৬ জুলাই, ২০২৩
  • ১৬১ বার পঠিত

মাদারীপুর জেলা প্রতিনিধি:

মাদারীপুরে এক বৃদ্ধকে থানায় নিয়ে শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগে শিবচর থানার এক পুলিশের উপ পরিদর্শকের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের করেছে ভুক্তভোগী। এ ঘটনায় বিষয়টি আমলে নিয়ে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)কে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। ভুক্তভোগীর দায়ের করা মামলার পরিপ্রেক্ষিতে রবিবার (১৬জুলাই)দুপুরে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট অভিজিৎ চৌধুরী এ নির্দেশ দেন।
অভিযুক্ত পুলিশ কর্মকর্তা হলেন শিবচর থানা পুলিশের উপ পরিদর্শক (নিরস্ত্র) নূর মোহাম্মদ।
ভুক্তভোগীর আকমান মাদবর (৬০),তিনি শিবচর উপজেলার সরকারের চর এলাকার মৃত আলাউদ্দিন মাদবরের ছেলে।
মামলার এজাহার ও আদালত সূত্রে জানা যায়, মামলার বাদী আকমান মাদবর একটি পাটকাটা মামলার ৪ নম্বর আসামী ছিলেন। আদালতের নির্দেশক্রমে আকমান মাদবরসহ আর চার আসামীকে গত রবিবার (৯ জুলাই) গ্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে আসেন পুলিশের এস আই নূর মোহাম্মদ।
এদের মধ্যে আকমান মাদবরকে থানার দ্বিতীয় তলার একটি কক্ষে নিয়ে যায় এসআই নূর মোহাম্মদ।পরে একটি কক্ষে নিয়ে তাঁকে অমানুষিক নির্যাতন করা হয়। এতে তার বাম হাত ভেঙে যায়। পরে তাকেসহ ঐ চারজনকে আদালতে পাঠানো হয়। ওই মামলায় জামিনে মুক্ত হয়ে পুলিশ সদস্য নূর মোহাম্মদকে আসামী করে আজ রবিবার (১৬জুলাই)আদালতে মামলা দায়ের করে ভুক্তভোগী মোঃ আকমান মাদবর।

ভুক্তভোগী ও মামলার বাদী মোঃ আকমান মাদবর বলেন, পুলিশ সদস্য নূর মোহাম্মদ আমাকে থানার একটি রুমে নিয়ে বেঞ্চের নিচে মাথা দিয়ে সারা শরীরে লাঠি দিয়ে পেটায়। পরে প্রস্রাব ও থুথু ফেলে আমাকে দিয়ে প্রস্রাব ও থুথু চাটাইছে। এক পর্যায়ে আমাকে দিয়ে আব্বা ডাকায় এস আই নূর মোহাম্মদ। এই ঘটনা কাউকে বললে আবারো নির্যাতন চালানোর হুমকি দেয় তিনি।
তবে নির্যাতনের অভিযোগ অস্বীকার করে শিবচর থানা পুলিশের উপ পরিদর্শক (নিরস্ত্র) নূর মোহাম্মদ বলেন, মারধরের কোনো ঘটনাই সেদিন ঘটেনি।এগুলো সব মিথ্যা ও বানোয়াট। এমনটা হলে যেদিন তাকে আদালতে চালান দিয়েছিলাম সেদিনই তিনি আদালতে বিষয়টি জানাতেন। এ বিষয়ে কারো ইন্দোনে বা পুলিশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার জন্য করছে।
বাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট জামাল হোসেন বলেন, থানায় বসে কোনো আসামীকে এভাবে নির্যাতন করার আইনগত অধিকার কারো নেই। ভুক্তভোগীর করা মামলায় মহামান্য আদালত পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। আমরা ন্যায় বিচার কামনা করছি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর
All rights reserved © 2024
Design By Raytahost